খালেদার মুক্তি-মাজেদের ফেরার যোগসূত্র
Bangla Sangbad BD - News Dask 04/09/2020 09:39:02 am

গত ২৫ মার্চ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ২৫ মাসের সাজা ভোগ করে ৬ মাসের জন্য মুক্তি পেয়েছেন। মুক্তি পেয়ে তিনি হোম কোয়ারেন্টাইনে আছে বলা হচ্ছে। কিন্তু বাস্তবে তিনি বিএনপির কলকাঠি নাড়ছেন এবং দলকে পুনর্গঠিত করার কাজেই নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন। বাসায় থেকেই তিনি সবার সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করছেন।বিএনপির একাধিক সূত্র বলছে যে, সরকার বিরোধী একটা বড় ধরনের আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য বিএনপি প্রস্তুতি নিচ্ছে এবং এই আন্দোলন গড়ে তোলা হবে বেগম খালেদা জিয়ার ৬ মাসের মুক্তিকালীন সময়ের মধ্যেই। তবে রাজনীতিক বিশ্লেষকরা বলছেন যে, আন্দোলন করে সরকার পতনের বাস্তবতা এখন নেই। তাছাড়া বিএনপি কখনোই আন্দোলনের দল না। বরং বিএনপি জন্ম থেকে এ পর্যন্ত সময় জুড়ে যে কাজটি দক্ষতার সাথে পালন করতে পেরেছে তা হলো ‘ষড়যন্ত্র’।

ষড়যন্ত্রেই বিএনপি পারদর্শী। আমরা যদি ইতিহাস পর্যালোচনা করি, তাহলে দেখতে পাব বিএনপির ষড়যন্ত্রের প্রধান অংশীদার ছিল পঁচাত্তরে বঙ্গবন্ধুর খুনিচক্র এবং একাত্তরের যুদ্ধাপরাধী ও স্বাধীনতাবিরোধী চক্র। এদের সাথে নিয়েই বিএনপি বিভিন্ন সময় ‘সফল ষড়যন্ত্র’ করতে পেরেছে। তাই বেগম খালেদা জিয়া যখন ৯১’এ প্রথম সরকার প্রধান হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন তখনই তিনি পঁচাত্তরের খুনিদেরকে পদোন্নতি দিয়েছিলেন।

বেগম জিয়া গণদাবি সত্ত্বেও সে সময় ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাতিল করেননি। পঁচাত্তরের খুনিদের খুশি রাখতেই তিনি ১৫ আগস্ট জাতির পিতার শাহাদাৎ দিবসের শোকাবহ দিনে জন্মদিনের উৎসব পালন করেছেন।

১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি বেগম জিয়া এক দলীয় প্রহসনের নির্বাচন করেছিলেন সেই নির্বাচনকে বৈধতা দেওয়ার জন্য তিনি পার্টনার হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন খুনি আবদুর রশিদকে। পবিত্র জাতীয় সংসদে তাকে নিয়ে এসে বসিয়েছিলেন। সেই বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির কিছুদিনের মধ্যেই দীর্ঘ সময় ভারতে অজ্ঞাতবাসে থাকা খুনি মাজেদ ঢাকায় এসে ধরা পড়লেন। এমনভাবে ঢাকা আসলেন যে বর্ডারে কেউ তাকে ধরতে পারলো না, চিনতে পারলো না। তিনি একটি রিকশায় করে ঢাকায় ঘুরছিলেন। নিজেই এক পর্যায়ে পরিচয় দেন যে, তিনি বঙ্গবন্ধুর খুনি। তারপর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আমরা জানি যে, পঁচাত্তরের খুনিদেরকে দেশের সর্বোচ্চ আদালত আপিল বিভাগ মৃত্যুদণ্ডে দন্ডিত করেছে। তাদের বিরুদ্ধে মৃত্যু পরোয়ানাও রয়েছে। ইন্টারপোল সারা বিশ্বে তাদের বিরুদ্ধে রেড এলার্ট জারি করেছে। বাংলাদেশের সব সীমান্ত এলাকাগুলোতে তাদের সম্পর্কে তথ্য থাকা উচিত। কারণ তারা মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। তারপরও সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে সীমান্ত পেরিয়ে মাজেদ কীভাবে ঢাকা এলেন?অনেকে বলছেন যে, মাজেদ করোনার ভয়ে বাংলাদেশে এসেছেন। এটাও কি বিশ্বাসযোগ্য? করোনার ভয় ভারতে আছে, বাংলাদেশে নেই? তাছাড়া ঢাকায় তিনি এলেন, আর আসার পর তিনি এভাবে ঘুরছিলেন কীভাবে? তার পেছনে কি কোনো মদদদাতা নেই, কোনো পৃষ্ঠপোষক নেই? নাকি তিনি স্রেফ কাকতালীয়ভাবে এসেছেন।খালেদা জিয়ার মুক্তির পর বিএনপির যে চেষ্টা, বিএনপির যে রাজনৈতিক তৎপরতা। তার সঙ্গে মাজেদের দেশে ফেরার কোনো যোগসূত্র আছে কি?আমরা যদি একটু পেছনে ফিরে তাকাই তাহলে দেখব যে, ২০০৪ সালের যে গ্রেনেড হামলার ঘটনা ঘটেছিল, সে সময় এই খুনি চক্রের প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ যোগসাজশ ছিল। সেই বিষয়টি যদি আমরা মাথায় নিয়ে মাজেদের দেশে ফেরাকে খুব সাদামাটা একটা ঘটনা হিসেবে না দেখি এবং এর মূল উৎস ও রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করি, তাহলে নিশ্চয়ই অনেক চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া যেতে পারে বলে আমাদের ধারণা। কারণ মাজেদের মতো একজন ঘৃণিত খুনি করোনার ভয়ে ঢাকা আসবে, এটা বিশ্বাসযোগ্য নয়। বরং খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং মাজেদের ঢাকায় ফেরার মধ্যে নিশ্চয়ই কোনো যোগসাজশ থাকতে পারে। এই খুনিচক্র বাংলাদেশে নতুন কোনো ষড়যন্ত্র করছে কিনা সেটাও দেখার বিষয়।

আমরা জানি যে, পঁচাত্তরের খুনিদের যারা মূল হোতা তাদের কয়েকজন এখনও পলাতক আছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রতি বছর আগস্ট মাস আসলেই আশার বানী শোনায় যে তারা দেশে ফিরছে কিন্তু বাস্তবে তাদের দেশে ফিরিয়ে নিয়ে আসার কোনো সফল উদ্যোগের কথা আমরা জানি না। খুনি রশিদ, খুনি ডালিম, এরা ভয়ঙ্কর। এদের এখন একমাত্র টার্গেট আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে রকম কোনো নীল নকশার বাস্তবায়নের জন্যই মাজেদ ঢাকায় এসেছিল কিনা সেটা ভাবতে হবে। নাহলে কোনো রকম সংকেত ছাড়া মাজেদের ঢাকায় আসার কারণ নেই বলে অপরাধ বিশেষজ্ঞরা মনে করেন। এর সঙ্গে খালেদা জিয়ার মুক্তির কোনো সম্পর্ক আছে কিনা সেটাও খতিয়ে দেখা দরকার বলে অনেকে মনে করেন। এখন করোনা নিয়ে একটা অস্থির সময় চলছে। আর সুযোগ সন্ধানী ষড়যন্ত্রকারীরা সবসময় ঘোলা পানিতে মাছ স্বীকার করতে চায়, এ বিষয়টি ভুললে চলবে না। 

 

Recent 10 News
ভিডিও কনফারেন্সির মাধ্যমে একনেক সভা !!!
ভিডিও কনফারেন্সির মাধ্যমে একনেক সভা !!! 05/19/2020 03:20:56 pm
ত্রাণ আত্মসাতকারীদের ক্ষমা নেই: ওবায়দুল কাদের
ত্রাণ আত্মসাতকারীদের ক্ষমা নেই: ওবায়দুল কাদের 04/22/2020 11:28:32 am
পরিবেশবান্ধব শিল্পের জন্য ২০ কোটি ইউরো`র জিটিএফ ফান্ড
পরিবেশবান্ধব শিল্পের জন্য ২০ কোটি ইউরো`র জিটিএফ ফান্ড 04/17/2020 05:54:22 pm
আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেল করোনার জীবন রহস্য উন্মোচন
আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেল করোনার জীবন রহস্য উন্মোচন 05/18/2020 07:40:01 pm
বাড়ির কাজের উপর প্রাপ্ত নম্বর শিক্ষার্থী মূল্যায়নে গুরুত্ব পাবে
বাড়ির কাজের উপর প্রাপ্ত নম্বর শিক্ষার্থী মূল্যায়নে গুরুত্ব পাবে 03/31/2020 12:58:00 pm
Visitor Statistics
  » 1  Online
  » 1  Today
  » 11  Yesterday
  » 46  Week
  » 800  Month
  » 6410  Year
  » 52892  Total
Record:30.05.2020
বানিজ্যিক কার্যালয়

১নং মকদম মুন্সী রোড, বাড়ি নং-১, পোঃ নিশাত নগর,
দাক্ষিন আউচপাড়া, বটতলা, টংগী, গাজীপুর।
মোবাইলঃ ০১৭১১-৫৩৬৭৯৫

মহানগর কার্যালয়

৭৩-আব্দুল্লাহ্পুর (পেপার মিল রোড),
উত্তরা, ঢাকা-১২৩০।
মোবাইল: ০১৯১১-৪৬২৯১৭, ০১৫৫২-৩০৭৯৩০

সম্পাদক

মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন (বাবুল)

সহঃ সম্পাদক

ডাঃ মো: জুনায়েদ বাগদাদী ।

প্রকাশক

মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল এমপি
মাননীয় প্রতিমন্ত্রী , যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়,
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার।

আমরা জনগন এর পক্ষে !!!                                 সত্যের সন্ধানে আমরা প্রতিদিন !!!

এন্ড নিউজে প্রকাশিত, প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি | © 2020 All Rights Reserved Andnews24.com | Maintened by Sors Technology