কারখানা যেন কারাগার, আটকে রেখে কাজ করানো হয় শ্রমিকদের!

Shakil Shahriar
জুলাই ১১, ২০২১ ৭:৩৪ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ইমরান আহমেদ কাজ করতেন পাঁচতলায় জুস সেকশনে। চারতলায় ছিলেন তাঁর পরিচিত সহকর্মী ফাহিম। আগুন লাগার পর ফাহিম ফোন করে তাঁকে বলেছিলেন, চারতলা থেকে নিচে নামার গেটে তালা দেওয়া। আবার ছাদে ওঠার সিঁড়ির মুখের গেটেও তালা। চারতলায় ৫০ জনের বেশি কর্মী কাজ করছেন।
নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কর্ণগোপ এলাকায় সজীব গ্রুপের ‘হাসেম ফুড’ কারখানার শ্রমিক ইমরান এভাবেই বলছিলেন আগুন লাগার পর সেখানে আটকে পড়া অসহায় শ্রমিকদের আকুতির কথা।
বৃহস্পতিবার বিকেলে ওই কারখানায় লাগা আগুনে পুড়ে এখন পর্যন্ত ৫২ শ্রমিক প্রাণ হারিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ৪৯টি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে চারতলার এক জায়গা থেকে। তাঁদের দেহ এমনভাবে পুড়েছে যে শনাক্ত করা যাচ্ছে না।
ইমরান ও তাঁর আরেক সহকর্মী তিনতলার একটি সেকশনের কর্মী শিউলি খাতুন বলেন, ভবনটির প্রতিটি তলায় তালা দেওয়ার পাশাপাশি কক্ষগুলোর মাঝখানে জালের দেয়াল তুলে রাখা হতো। কর্মকর্তারা বলতেন, খাবারের জিনিস যেন কেউ নিতে না পারে সেই কারণে এই ব্যবস্থা। এর আগেও আগুনের ঘটনা ঘটে। তখনো কাউকে তালা খুলে বের হতে দেওয়া হয়নি।